May 18, 2022, 10:49 am

অমিক্রনের মূল ধরনের চেয়ে মারাত্মক নয় বিএ.২ উপধরন: ডব্লিউএইচও

Spread the love

করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক অমিক্রন ধরনের বিএ.২ উপধরনটি নিয়ে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে। এটি যে অমিক্রনের মূল ধরনের চেয়ে বেশি সংক্রামক, তা তাঁরা নিশ্চিত হয়েছেন আগেই। তবে এটি মূল ধরনের চেয়ে বেশি মারাত্মক কি না, তা নিয়ে গবেষণা চলছিল। এমন অবস্থায় গতকাল (২২ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, করোনাভাইরাসের অমিক্রন ধরনের বিএ.২ উপধরনটি এখন আর মূল ধরনের চেয়ে বেশি মারাত্মক নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সংক্রামক রোগবিষয়ক শীর্ষ পর্যায়ের বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান কেরখোভের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এসব তথ্য জানিয়েছে।

মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) অনলাইনে অনুষ্ঠিত এক প্রশ্নোত্তর অধিবেশনে অংশ নেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সংক্রামক রোগবিষয়ক শীর্ষ পর্যায়ের বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান কেরখোভ। এ সময় তিনি করোনাভাইরাসের রূপান্তর নিয়ে পর্যালোচনাকারী বিশেষজ্ঞ কমিটির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন।

কেরখোভ বলেন, বিভিন্ন দেশের নমুনা পরীক্ষা ভিত্তিতে তাঁরা সম্মত হয়েছেন যে গুরুতর রোগ সৃষ্টির ক্ষেত্রে অমিক্রনের মূল ধরন বিএ.১ এবং উপধরন বিএ.২–এর মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। কেরখোভ বলেন, ‘আক্রান্ত ব্যক্তিদের হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকি বিবেচনায় নিলে এ দুই ধরনের সক্ষমতা সমপর্যায়ের। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ অনেক দেশে বিএ.১ ও বিএ.২ দুটোরই একই সঙ্গে বিস্তার দেখা গেছে।’

ডেনমার্কসহ যেসব দেশে অমিক্রনের বিএ.২ ধরনের বিস্তার দেখা গেছে সেসব দেশে ডব্লিউএইচওর নতুন এ ঘোষণাটি স্বস্তিকর হবে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বিএ.২ উপধরনটি সহজাতভাবে অনেক বেশি সংক্রামক। কেন এটা হচ্ছে, তা জানতে আরও গবেষণা চলছে। বিশ্বজুড়ে সবগুলো ধরনেরই বিস্তার কমছে।

এএফপির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৫৮ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আশঙ্কা, প্রকৃত মৃতের সংখ্যা দুই বা তিন গুণ বেশি হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी