May 17, 2022, 6:41 pm

যে খাবারগুলো ব্যথা তৈরির জন্য দায়ী

Spread the love

ডিমের কুসুম : ডিমের কুসুমে আছে এ্যারাকিডনিক এসিড। গবেষনায় দেখা গেছে এই ফ্যাটি এসিড ব্যথা তৈরি করে। সুতরাং যারা জয়েন্ট ব্যথায় ভুগছেন তারা ডিমের কুসুম খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

লাল মাংস : লাল মাংসে আছে কেমিক্যাল পিউরিন নাইট্রাইট যা প্রদাহ অর্থাৎ ইনফ্লামেশন আরও বাড়িয়ে দেয়, এছাড়াও আরও আছে টকসিন গ্লাইকেশন। গবেষনায় দেখা গেছে লাল মাংসে যে গ্লাইকেশন আছে যা ব্যথা তৈরি করে । যখন শরীরে ইনফ্লামেশন হয় তখন সি- রিঅ্যাকটিভ প্রোটিন নামক এক ধরনের প্রোটিন লিভারে তৈরি হয় । লাল মাংস এই সি রিঅ্যাকটিভ প্রোটিনের লেভেল বাড়িয়ে দেয় ফলে ব্যথা জনিত সমস্যা বেড়ে যায়।

মিষ্টি জাতীয় খাবার : চিনি যুক্ত খাবার সব ধরনের জয়েন্ট ও মাংসপেশীর ব্যথা বাড়িয়ে দেয়। ইনফ্লামেশন এর প্রধান এজেন্ট হলো সাইটোকাইনস । চিনি সাইটোকাইনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় ফলে ব্যথা বেড়ে যায় । গবেষনায় দেখা গেছে প্রতিদিন চিনি জাতীয় খাদ্য অর্থাৎ সোডা, সুইট ড্রিংকস এসব খেলে মহিলাদের রিমাটয়েড আর্থ্রাইটিস হওয়ার ঝুকি বেড়ে যায়।

দুগ্ধ জাতীয় খাবার : যাদের ইনফ্লামেশন ও কোমর ব্যথা আছে তাদের ডেইরি পোডাক্ট গ্রহনের পর ইনফ্লামেশন বেড়ে যায়। ব্যথা বেড়ে যাওয়ার কারন হল দুগ্ধ জাতীয় খাবার প্রচুর পরিমানের প্রোটিন থাকে । আর এই প্রোটিন জয়েন্ট এর আসে পাশে যে টিস্যু আছে তা ইরিটেট করে । এ্যালার্জি যুক্ত রুগীদের ডেইরী প্রোডাক্টে ইনফ্লামেশন বেড়ে যায়।

কর্ন ওয়েল : ভুট্টার তেলে থাকে প্রচুর পরিমানের ওমেগা ৬ ফ্যাটি এসিড যা আমাদের জন্য ক্ষতিকর। দ্যা জার্নাল ওফ নিউট্রিশন এবং মেটাবলিজম স্টেট তাদের এক গবেষনায় বলে বেশী ওমেগা ৬ এসিড বেশী ইনফ্লামেশন তেরি করে । কিন্তু খাদ্য তালিকা থেকে ওমেগা ৬ ফ্যাটি এসিড বাদ দেওয়া যাবে না এটি জরুরী কিন্তু অতিরিক্ত গ্রহন করা যাবে না । বেশী বেশী ওমেগা ৩ এসিড খেতে হবে। যেমন ওলিভ অয়েল।

আথ্রাইটিস মূলত যাদের বয়স ৫০ বছরের বেশী তাদের বেশী হয়ে থাকে। হাঁটু, হিপ ও হাতের ছোট জয়েন্টগুলোতে বেশী হয়ে থাকে । এই কন্ডিশনের লক্ষগুলো নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য খাদ্য তালিকায় কিছু পরিবর্তন আনা আবশ্যক ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी