May 17, 2022, 8:22 am

দলের ভিন্নমতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ইমরান সমর্থকদের, সিন্ধু হাউসে হানা

Spread the love

পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান তেহরিক–ই–ইনসাফের (পিটিআই) ভিন্নমতাবলম্বী আইনপ্রণেতাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে দলটির সমর্থকেরা। গত (১৮ মার্চ) শুক্রবার ইসলামাবাদে সিন্ধু হাউসের সামনে কয়েক ঘণ্টা বিক্ষোভের পর জোর করে ভবনটির ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করেন তাঁরা। এ সময় পিটিআইয়ের ভিন্নমতাবলম্বী আইনপ্রণেতারা ভবনের ভেতরে অবস্থান করছিলেন। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে ৮ মার্চ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেয় বিরোধী দলগুলো। এ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা ও ভোটাভুটির জন্য অধিবেশন ডাকতে স্পিকার আসাদ কায়সারের প্রতি লিখিত আবেদন জানায় তারা। পাকিস্তানের সংবিধান অনুযায়ী, ৩৪২ সদস্যবিশিষ্ট জাতীয় পরিষদে উত্থাপিত অনাস্থা প্রস্তাব পাসের জন্য প্রয়োজন ১৭২ ভোটের। সম্প্রতি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও কয়েকজন মন্ত্রী অভিযোগ করেছেন অনাস্থা ভোটকে সামনে রেখে বিরোধী দলগুলো বাণিজ্য শুরু করেছে। টাকার বিনিময়ে পিটিআইয়ের আইনপ্রণেতাদের কিনে নেওয়ার চেষ্টা করছে তারা। আর এ বেচাকেনার কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ইসলামাবাদের সিন্ধু হাউসকে।

গত (১৭ মার্চ) বৃহস্পতিবার জানা যায়, বিরোধীদের সঙ্গে যোগ দেওয়া পিটিআইয়ের কয়েকজন আইনপ্রণেতা সিন্ধু হাউসে লুকিয়ে আছেন। এ খবর জানতে পেরে পরদিন শুক্রবার সিন্ধু হাউস ঘেরাও করে পিটিআই সমর্থকেরা।

টেলিভিশন ফুটেজে দেখা গেছে, পিটিআই কর্মীরা সিন্ধু হাউসের দেয়ালের ওপর উঠে যাচ্ছেন। তাঁদের কেউ কেউ আবার পরে ভবনে প্রবেশের জন্য দরজা ভেঙে ফেলছেন। পরে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দেয়। বিশৃঙ্খলার অভিযোগে ১৩ বিক্ষোভকারীকে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

সিন্ধু হাউসের কর্মকর্তা কুরবান আলী আনোয়ারের পক্ষ থেকে থানায় ইতিমধ্যে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

এফআইআরে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৫ থেকে ২০ জন পিটিআই সদস্য সিন্ধু হাউসে প্রবেশের চেষ্টা করছিলেন। পাকিস্তান পেনাল কোডের ১৪৪ ধারা অনুযায়ী রেড জোনে অবস্থিত যেকোনো স্থাপনায় সব রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ও বিক্ষোভ নিষিদ্ধ। সিন্ধু হাউসের অবস্থানও এ রেড জোনে।

এফআইআরে আরও বলা হয়, পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষোভকারীদের সরে যেতে বলেছিলেন। তবে বিক্ষোভকারীরা তাতে রাজি হননি। তাঁরা স্লোগান দিচ্ছিলেন। পরে সিন্ধু হাউসে প্রবেশের চেষ্টায় সেখানকার একটি গেট খুলে ফেলেন তাঁরা। পরে ১৩ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতির সরকারি বাসভবনের বিপরীত দিকে সিন্ধু হাউসের অবস্থান। ওই ভবনটি সিন্ধু পুলিশের বিশেষ নিরাপত্তা ইউনিটের (এসএসইউ) কর্মীদের সুরক্ষার আওতায় রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी