May 16, 2022, 9:33 pm

আলোচনার জন্য তুরস্কে ইউক্রেনের প্রতিনিধিদল

Spread the love

এক মাস পেরিয়ে গেল ইউক্রেন-রাশিয়া সংঘাতের। এরই মধ্যে প্রাণ গেল অনেকের। ধ্বংসস্তূপ কয়েকটি শহর। এরই মধ্যে সামরিক সংঘাত নিরসনের লক্ষ্যে আবার শান্তি আলোচনায় বসছে ইউক্রেন ও রাশিয়া। অনলাইনে কয়েক দফা বৈঠকের পর এবার তুরস্কে মুখোমুখি আলোচনা হবে। শান্তি আলোচনায় অংশ নিতে তুরস্কে পৌঁছেছে ইউক্রেনের প্রতিনিধিদল। আজ (২৯ মার্চ) মঙ্গলবার ইস্তাম্বুলে দুই দেশের প্রতিনিধিদলের বৈঠকে বসার কথা রয়েছে।

এক প্রতিবেদন এ বলছে, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেস্কি রেজনিকোভের নেতৃত্বে ইউক্রেনের প্রতিনিধিদলে আরও রয়েছেন প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের প্রধান মিখাইল পোদোলিয়াক। ইউক্রেনের প্রতিনিধিদল বলছে, একটি যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছানোই তাদের প্রধান লক্ষ্য। যদিও যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছানো সম্ভব কি না, সেটা নিয়েই সংশয় রয়েছে বেশি।

প্রথমে তিন দফা মুখোমুখি বৈঠকের পর দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে শুধু অনলাইনে আলোচনা হয়েছে। এবার দুই দেশের প্রতিনিধিদের মুখোমুখি আলোচনার আয়োজন করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। স্থানীয় সময় আজ (২৯ মার্চ) মঙ্গলবার সকাল ১০টায় (বাংলাদেশ সময় বেলা ১টায়) বৈঠক শুরু হওয়ার কথা।

ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনার শুরু থেকেই রাশিয়া দাবি জানিয়ে আসছে, ইউক্রেনকে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার বাসনা ছাড়তে হবে। তবে প্রথম দিকে ইউক্রেন এ দাবিতে গুরুত্ব না দিলেও এখন অবশ্য ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলছেন, তিনি এ ব্যাপারে ছাড় দিতে রাজি আছেন।

এরদোয়ানের মধ্যস্থতায় ইস্তাম্বুলে আজকের বৈঠকে আরও কিছু বিতর্কিত বিষয় নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা পূর্ব ইউক্রেনের স্বঘোষিত দুই প্রজাতন্ত্রের ভবিষ্যৎ কী হবে, সে বিষয়ও রয়েছে। এ ছাড়া ক্রিমিয়া নিয়েও আলোচনা হওয়ার কথা। ২০১৪ সালে ক্রিমিয়া দখল করে নেয় রাশিয়া।

আলোচনায় রুশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বে রয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের উপদেষ্টা ভ্লাদিমির মেদিনস্কি। রাশিয়ার সংবাদ সংস্থা তাস জানিয়েছে, সোমবার মেদিনস্কি জানান, আজ ভিডিও কনফারেন্সে ইউক্রেনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। ২৯ ও ৩০ মার্চ মুখোমুখি আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু করে রাশিয়া। অভিযান শুরুর চার দিন পর ২৮ ফেব্রুয়ারি বেলারুশের গোমেল অঞ্চলে প্রথমবার দুই দেশের প্রতিনিধিরা আলোচনায় বসেন। প্রথম দফার ওই বৈঠক হয়েছিল পাঁচ ঘণ্টা। এরপর ৩ মার্চ বেলারুশের বেলোভেঝিশকায়া পুশচায় দ্বিতীয় দফায় বৈঠক হয়। রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রতিনিধিদল ৭ মার্চ বেলারুশের ব্রেস্ট অঞ্চলে তৃতীয় দফায় বৈঠকে বসেন। সংঘাত বন্ধে এরপর কয়েক দফায় অনলাইনেও বৈঠক হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी