May 15, 2022, 7:42 pm

রাহুল দ্রাবিড়ের সহানুভূতির দরকার নেই

Spread the love

এমনিতেই ‘তকমা’ দ্বিতীয় সারির দলের। শ্রীলঙ্কা সফরে থাকা ভারত দলটির ওপর আবার আঘাত হেনেছে করোনাভাইরাস। ক্রুনাল পান্ডিয়া কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার পর আইসোলেশনে চলে যেতে হয়েছে আরও ৮ জন খেলোয়াড়কে। ফলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ভারতীয় কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের হাতে খেলানোর মতো স্কোয়াডে বাকি ছিল ১১ জন ক্রিকেটারই । তবে দ্রাবিড় বলছেন, ব্যাপারটি সহানুভূতির চোখে দেখার কিছু নেই। স্কোয়াডের সবাই আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার যোগ্য।

পান্ডিয়ার কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার সংবাদ এসেছিল দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টির পূর্বনির্ধারিত সূচির মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে। এরপর পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল সে ম্যাচ। গতকাল সে ম্যাচটিই অনুষ্ঠিত হয়। তাতে ভারতকে ৪ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে সমতা এনেছে শ্রীলঙ্কা। আগে ব্যাটিং করা ভারত আটকে গিয়েছিল ১৩২ রানেই। তবে এ সফরে ভারতের ভারপ্রাপ্ত হেড কোচ দ্রাবিড় সবাইকেই যোগ্য মনে করছেন, ‘সত্যি বলছি, স্কোয়াডের জন্য নির্বাচিত ২০ জন খেলোয়াড়ের দিকে তাকালে আমি দেখি দারুণ সব পারফরম্যান্স। যেসব পারফরম্যান্সের মাধ্যমেই তারা দলে এসেছে।’

ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়াটা কেমন কঠিন, দ্রাবিড় মনে করিয়ে দিয়েছেন সেটিও, ‘ভারতে (সুযোগ পাওয়াটা) সহজ নয়। ক্রিকেট তো কম লোক খেলে না সেখানে। অসাধারণ সব পারফরম্যান্স আছে। যারা এসেছে, যোগ্যতা দিয়েই এসেছে। হয়তো সবসময় সবাইকে সুযোগ দেওয়া যায় না, তবে সুযোগ পেলে এ খেলোয়াড়দের সুযোগ দেওয়াটা ভালো। নানা কারণেই এবার সেটি করতে পারছি আমরা।’

৮ জনের আইসোলেশনে চলে যাওয়া প্রভাব ফেলেছে ভারতের ব্যাটিং লাইনআপে, ভুবনেশ্বর কুমারকে নামতে হয়েছে ছয় নম্বরে। ভারতের হয়ে গতকাল অভিষেক হয়েছে চারজনের। তবে এসব নিয়ে যেকোনো ধরনের সহানুভূতি দ্রাবিড়ের পছন্দ নয়। ‘সত্যি বলতে আমাদের জন্য মায়া করার দরকার আছে বলে মনে করি না। দলটা দারুণ, আগেই বলেছি সবারই একাদশে সুযোগ প্রাপ্য। হয়তো দলের ভারসাম্য একটু নষ্ট হয়েছে, তবে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ভাল খেলতে পারব বলেই আমার বিশ্বাস।’

যাঁরা সুযোগ পেয়েছেন, তাঁদের জন্যও এটিকে সুযোগ হিসেবেই দেখছেন ভারতীয় কিংবদন্তি, ‘কেউ যদি ১৫ বা ২০ জনের স্কোয়াডে সুযোগ পায়, তাহলে তার মানসিক প্রস্তুতি থাকতে হবে যে যেকোনো সময় তার একাদশে সুযোগ মিলতে পারে। সেটি চোটের কারণে হতে পারে, অন্য কারও ফর্মের কারণেও হতে পারে। আমি মনে করি, ভারতের ক্যাপটা তারা সবাই নিজেদের যোগ্যতা দিয়েই অর্জন করেছে। এখন তাদের কাজ কেবল সুযোগ পেলে পারফর্ম করে যাওয়া।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতকে ছয়জন বোলার খেলাতে হয়েছে। পরের ম্যাচেও তা–ই করতে হবে। রিজার্ভ সদস্য হিসেবে যে পাঁচজনকে শ্রীলঙ্কায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে, তাঁদের সবাই বোলার। এদিকে আইসোলেশনে যাওয়া ক্রিকেটারের নাম বিসিসিআই আনুষ্ঠানিকভাবে না জানালেও দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশ দেখেই বোঝা হয়ে গেছে, তাঁরা কারা। আইসোলেশনে যাওয়া ক্রিকেটারের মধ্যে আছেন পৃথ্বি শ, সূর্যকুমার যাদবও। এ দুজনের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শেষেই যাওয়ার কথা ছিল ইংল্যান্ডে। সেখানে ভারতের টেস্ট দলে ডেকে পাঠানো হয়েছিল তাঁদের। তবে আইসোলেশনে কত দিন থাকতে হবে, সেটি নিশ্চিত নয় এখনো। ফলে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তাঁদের ইংল্যান্ড যাওয়ার ব্যাপারটি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভারতের শেষ টি-টোয়েন্টি আজই। এর আগে ওয়ানডে সিরিজেও ভারত জিতেছিল ২-১ ব্যবধানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी