ডুবে ডুবে পাঁচ বছর

Spread the love

পাঁচ বছর ধরে গণমাধ্যমগুলো খবর করেছে আর তাঁরা অস্বীকার করেছেন। বলছি বলিউড অভিনেতা উদয় চোপড়া ও নার্গিস ফাখরির কথা। ভাঙা রেকর্ডের মতো একই গৎ বাজিয়েছেন তাঁরা, ‘আমরা কেবলই বন্ধু।’ অবশেষে নার্গিস স্বীকার করলেন, ‘হ্যাঁ, প্রেম আমরা করছি।’

সত্যি বলতে কি, উদয়–নার্গিসকে নিয়ে গুঞ্জন যখন একটু কমে এসেছিল, ঠিক তখনই এক সাক্ষাৎকারে নার্গিস বলেন, ‘উদয় হচ্ছে ভারতে আমার দেখা সবচেয়ে সুন্দর মানুষ। পাঁচ বছর ধরে আমরা প্রেম করছি।’ কথাটা স্বীকার করতে এত দিন লেগে গেল কেন? নার্গিস বলেন, ‘সবাই আমাকে বলেছিল, প্রেম নিয়ে যেন চুপচাপ থাকি। কিন্তু সেটা ছিল ভুল। আমার তো উঁচু জায়গায় দাঁড়িয়ে চিৎকার করে সবাইকে বলা উচিত ছিল, চমৎকার হৃদয়ের একজন মানুষের সঙ্গে আমি আছি।’ সম্পর্কের ব্যাপারটা নিজেদের মধ্যে রাখা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইন্টারনেট ও সোশ্যাল মিডিয়া একটা ভুয়া জায়গা, এখানকার বাসিন্দারা জানেন না, সত্য আসলে কী! পর্দার আড়ালের খারাপ মানুষগুলোকে এখানে আইডল বানিয়ে ফেলা হয়।’

২০১৬ সালে উদয় চোপড়া ও নার্গিস ফাখরিকে নিয়ে প্রায়ই যখন নানা রকম খবর প্রকাশিত হচ্ছিল, তখন টুইটারে একটা বিবৃতি দিয়েছিলেন উদয়। তিনি লিখেছিলেন, ‘আমি ও নার্গিস ভালো বন্ধু। আমাদের নিয়ে যা ছড়াচ্ছে, সেসবের কোনো ভিত্তি নেই।’ এর আগে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘আমরা যাস্ট ফ্রেন্ড।’

২০১৬ সালেই হঠাৎ খবর রটে যায়, উদয়–নার্গিসের বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। সেই শোক কাটাতে হাউসফুল থ্রি ছবির প্রচারণা বাদ দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেছেন নার্গিস। পরে তাঁর এক মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, নার্গিস আসলে কর্মক্লান্ত। একটু বিশ্রাম নিতে গেছেন। পরের বছর ছড়াল, মুম্বাইয়ে এক বাড়িতে সংসার পেতেছেন উদয়-নার্গিস। শিগগির বিয়ের কার্ড ছাপা হবে। আবারও মুখপাত্র জানালেন, স্নুপ ডগের সঙ্গে একটা কাজের ব্যাপারে আলোচনা করতেই মুম্বাইয়ে ছিলেন নার্গিস।

২০১১ সালে “রকস্টার” ছবির মাধ্যমে নার্গিসের বলিউডে অভিষেক। এরপর “ম্যায় তেরা হিরো”, “মাদ্রাজ ক্যাফে”, “হাউসফুল থ্রি”, “ডিশুম” ও “ব্যাঞ্জো” তাঁকে পরিচিতি এনে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই সম্পর্কিত আরো খবর...
العربية বাংলা English हिन्दी